আমি’ই একুশ 

February 20, 2017

ফেটে পড়ে আমজনতা
দাবি একটাই –
মাতৃভাষা বাংলা চাই!

কিছু বুলেট, রাস্তায় কিছু লাশ
তারপর আমি….
আমি একুশ!

না গল্প এতটুকুই নয়,
আছে কান্নার ভাষা, হাসির ঝংকারের ভাষা,
হিংসা, বিদ্বেষ, হতাশা আর অভিমানের ভাষা।

আছে ভালবাসার ভাষা,
ভাব প্রকাশের জন্য প্রয়োজন কিছু বর্ণমালার –
নুন দিয়ে মা ভাদ দে, কচলে খাই।

এরপর আমি…
আমি’ই একুশ।

পিতাহীন মাতৃজঠর হতে
আমি নিজেই ভূমিষ্ঠ হয়েছি,
বঙ্গ আমার ধাত্রী।

এ দেশের মানুষ আমাকে তুলে নিয়েছে ঠোটে
দিয়েছে নিজস্ব পরিচিত,
আমি অমর…
আমি একুশ।

আমার আছে নাম, পরিচয়, সন্মান
আমায় নিয়ে গান বাধে, সুরেলা কন্ঠে,
সে গান ছড়িয়ে পড়ে দিকবিদিক।

জনতার বিক্ষোভ মিছিলে স্লোগান হয়ে চিত্কার করি,
তৃপ্তিতে ঝগড়া করি  চাল চুলো নিয়ে সংসারে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আমাকে বিলোয়,
আছি আমি শান্তিকামীর  প্রার্থনায়।

চলে আমারও বিকিকিনি,
আমাকে নিয়ে এখনো সংশোধন, পরিমার্জন, পরিবর্ধন হয়।

আমাকে নিয়ে বিকৃতকারীদের আমি ঘৃনা করি,
তাদের নিজদের অস্তিত্বকেই তারা বেজন্মার দলে নাম লিখায়।

তাদের এপিটাফে আমার অক্ষরে নাম লিখা না থাকলেও আমার কিছু যায় আসে না
তবু আমি অপরিবর্তনশীল।

আমি কেবল বসন্তে ফুটি না,
শুধু একটি দিনের উদযাপনে আমি বিলীন হয়ে যাই না।

আমি বাংলার শ্রেষ্ঠ উপহার,
প্রতিটি বাঙালির সর্ব কালের নিস্বার্থ সম্পত্তি।

আমি তাদের অনুগ্রাহী নই,
আমি কিংবদন্তি,
আমি একুশ।