ফিরে এসো

February 20, 2013

রহস্যময়ী পুরনো ছবিখানা নিভু নিভু আলোয় আরো স্পষ্ট,
যেন কিছুই লুকোনো নেই আর তাতে।
আমি গেথে রেখেছি হৃদয়ে তার মুখ খানি;
যা কখনই হারাবার নয়।

স্বর্গই শুধু জানে মানবতা কেন আজও শ্বাস ফেলে বিবেকের দানিতে,
প্রতিটি হাত খোঁজে নতুন কোন হাত।
দূর থেকে ভেসে আসে ট্রেনের ঘন্টার শব্দ,
হাজারো কাজের মাঝে আমি অপেক্ষায় থাকি ।
তোমার পায়ের শব্দ যেকোনো সময় থামিয়ে দিবে আমার সকল ব্যেস্ততা,
হয়ত আবার বাধব খেলাঘর ছোট কোন গলির সাজানো ঘরে।

তোমার আবাস স্থলে ফিরে আসতেই হবে তোমাকে।
একটি ঘর যেখানে তুমি ফিরতে চাও;
হোক সেটা শীর্ণ, হোক সেটা ভেঙ্গে পড়া জরাজীর্ণ;
তবু তোমাকে আসতেই হবে ।
তোমার প্রতিবেশী সেখানে হয়ত দরিদ্র;
সেখানে প্রতিনিয়ত হয় খেস্তিখেউর দেশী ভাষায়;
তবু তোমাকে ফিরতেই হবে, কারন তুমি সেখানেই ফিরতে চাও।

কোন রৌদ্রজ্জল সকালে পামির সমুদ্র সৈকতে,
ঠাণ্ডা লেমন জুসে  চুমুক দিচ্ছিলে যখন;
এক ঝাক সোনালী চুল তোমার মুখে এসে পড়েছিল,
কাধে ছুয়েছিল গরম কামুক শ্বাস।

তখন তুমি উন্মনা হয়ে মনে করতে চেয়েছিলে….
তোমার গাঁয়ের শান বাধানো পুকুরে গেরুয়া সবুজ শাড়ি পড়া সেই পটলচেরা মেয়েটির নাম।

ফিরে এসো, যেখানে তুমি সত্যি ফিরে আসতে চাও।